শিক্ষার্থীদের ঘাড়ে চড়ার ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি

Print Friendly

চাঁদপুর ও জামালপুরে শিক্ষার্থীদের ঘাড়ের ওপর দিয়ে সেতু বানিয়ে পার হওয়ার ঘটনায় উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তদন্ত কমিটিকে আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ তদন্ত কমিটি গঠন করে।

এদিকে চাঁদপুরের ঘটনায় এক অভিভাবক মামলা করেছেন এবং স্থানীয় সরকার বিভাগও পৃথক তদন্ত কমিট গঠন করেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব অসীম কুমার জানান, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নির্দেশে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি করা হয়। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বিশ্ববিদ্যালয়) মো. আব্দুল্লাহ আল হাসান চৌধুরীকে তদন্ত কমিটির প্রধান করা হয়েছে। আগামী তিন কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে আদেশ জারি করেছে মন্ত্রণালয়। এ কমিটি চাঁদপুর ও জামালপুর ছাড়া অন্য কোথাও এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে কিনা তাও খতিয়ে দেখবে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্ম-সচিব অমিতাভ সরকার জানান, চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনারকে বিষয়টি তদন্ত করে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার হাইমচর উপজেলার নীলকমল উছমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যান ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নূর হোসেন পাটওয়ারী সেতু বানিয়ে শিক্ষার্থীদের ঘাড়ে চড়ে হেঁটে যান। এ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ফেসবুকে অনেকেই ওই চেয়ারম্যানকে বরখাস্ত করে কারাগারে পাঠানোর দাবি জানান। স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান অনেকেই।

এ ঘটনার রেশ না কাটতেই জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার মাহমুদপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিশুদের কাঁধে চড়ে হাঁটেন ওই স্কুলের জমিদাতা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা দিলদার হোসেন প্রিন্স।