পর্দা উঠলো বইমেলার

Print Friendly

অমর একুশে বইমেলার পর্দা উঠলো। বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বইমেলার শুভ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে বেলা ৩টার দিকে মেলা প্রাঙ্গণে উপস্থিত হন তিনি।

উদ্বোধনের আগে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার প্রদান করেন তিনি। বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৬ প্রাপ্ত কবি-সাহিত্যিকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন শেখ হাসিনা। এ বছর সাতজন বিশিষ্ট কবি, লেখক এবং গবেষক এ পুরস্কার পান।

পুরস্কার প্রদানের পর বক্তব্যে ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। উদ্বোধনের পর মেলার বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন তিনি।

এবার ৪০৯টি প্রতিষ্ঠানের মোট ৬৬৩টি ইউনিট নিয়ে বসছে অমর একুশে বইমেলা।

গত বছরের মতো এবারও বাংলা একাডেমি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মেলার আয়োজন করা হয়েছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অংশকে মোট ১২টি চত্বরে সজ্জিত করা হয়েছে।

bookবাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ৮০টি প্রতিষ্ঠানকে ১১৪টি এবং সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৩২৯টি প্রতিষ্ঠানকে ৫৪৯টি ইউনিটসহ মোট ৪০৯টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৬৩টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এবারের মেলায় বাংলা একাডেমিসহ মোট ১৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৫ হাজার বর্গফুট আয়তনের ১৫টি প্যাভিলিয়ন বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

প্রতিবারের মতো এবারও বর্ধমান হাউজের দক্ষিণ পাশে ১০০টি লিটল ম্যাগাজিনকে স্টল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। মেলায় বাংলা একাডেমি ৩০ শতাংশ কমিশনে এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ২৫ শতাংশ কমিশনে বই বিক্রি করবে। মেলায় শিশু কর্নার থাকবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। মাসব্যাপী শিশু প্রহরও থাকছে মেলায়।

মেলায় টিএসসি, দোয়েল চত্বর দিয়ে দুটো মূল প্রবেশপথ, বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে তিনটি পথ, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মোট আটটি পথ থাকবে। এবারই প্রথম সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশ ও বের হওয়ার জন্য একটি দৃষ্টিনন্দন নতুন সুপ্রশস্ত গেট নির্মাণ করা হয়েছে।

মেলার নিরাপত্তায় পুলিশ, র‌্যাব, আনসার, বিজিবি ও গোয়েন্দা সংস্থার সদ্যস্যরা নিয়োজিত থাকবেন।

প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত মেলা খোলা থাকবে। তবে ছুটির দিন বেলা ১১টায় এবং ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে সকাল ৮টায় মেলা শুরু হবে।