প্রশ্নপত্র ফাঁসের আশঙ্কা দূর হয়েছে: শিক্ষামন্ত্রী

Print Friendly

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহায়তাসহ নানা প্রচেষ্টার ফলে পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের আশঙ্কা দূর হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। আজ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে আসন্ন এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে আয়োজিত আইনশৃঙ্খলা-সংক্রান্ত কমিটির সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী ২ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে শুরু হচ্ছে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। এই পরীক্ষা শেষ হবে মার্চের প্রথম সপ্তাহে।

অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, কখনো কখনো একটি চক্র প্রশ্নপত্র ফাঁস করত বা ব্যবসা করার জন্য ‘দুই নম্বরী’ করত। ভুয়া প্রশ্ন বিক্রি করে পাঁচ হাজার থেকে তিন লাখ টাকা আয়ও করেছে অনেকে। এই প্রবণতা বন্ধের জন্য বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ নেয় সরকার।

বিশেষ করে প্রশ্নপত্র ছাপার সময় বিজি প্রেসে নজরদারি জোরদার করা হয়েছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শুধু প্রশ্নপত্র ছাপার জন্য বিজি প্রেসের পুরো ব্যবস্থার পরিবর্তন করা হয়েছে। সেখানে প্রশ্নপত্র ফাঁসের সুযোগ বন্ধ করা হয়েছে। একমাত্র সুযোগ ছিল পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রশ্ন দেওয়ার আধা ঘণ্টা আগে প্রশ্নপত্রের প্যাকেট খোলার সময়। ওই সময় কেউ কেউ দুই নম্বরী করেছে। তবে দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে শাস্তিও দেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়ায় এবার প্রশ্নপত্র ফাঁস হবে না বলে আশা করেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি জানান, কোচিং সেন্টারগুলোর ওপরও এবার কড়া নজর রাখা হয়েছে। এখন আর কেউ এই সুযোগ নিতে পারবে না।

সভায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা ছাড়াও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষা বোর্ডগুলোর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।