টাইগারদের ৪৫৭ রানের টার্গেট দিয়েছে শ্রীলঙ্কা

Print Friendly

নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে বড় লিড নিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ফলে গল টেস্টে এখন কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে মুশফিক বাহিনী। প্রথম তিন দিনের উদ্যম খুঁজে পাওয়া যায়নি তাদের মাঝে। চতুর্থ দিনে বোলিং কিংবা ফিল্ডিংয়ে টাইগারদের মাঝে আলস্যের ছাপ। তৃতীয় সেশনে চা বিরতির পরপরই ৬ উইকেটে ২৭৬ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের সামনে ৪৫৭ রানের পাহাড়সম টার্গেট। জেতার তো কোনো প্রশ্নই আসে না; প্রশ্ন হলো ম্যাচটি কি আদৌ ড্র করতে পারবে বাংলাদেশ। আজকের দিনের শেষভাগ আর আগামীকাল পুরো দিন ভাঙাচোরা টার্নিং উইকেটে খেলা যে ভীষণ কঠিন!

নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩১২ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনের শেষ সেশন বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ার পর গল টেস্টের চতুর্থ দিনে ১৮২ রানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে শ্রীলঙ্কা। সকালেই দেখা যায় ক্যাচ মিসের মহড়া। সাকিব আল হাসানের কল্যাণে জীবন পান দিমুথ করুনারত্নে। আর উইকেটবঞ্চিত হলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। বাকী দিনে কয়েকবার এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখা গেছে।

আজ শুক্রবার গলে দিনের শুরু করেছেন লঙ্কান দুই ওপেনার দিমুথ করুনারত্নে ও উপুল থারাঙ্গা। দারুণ শুরুও করেন তারা। তবে দলীয় ৬৯ রানে লঙ্কান শিবিরে আঘাত হানেন তাসকিন। তার করা দ্বিতীয় ওভারে মাহমুদউল্লাহর হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন দিমুথ করুনারত্নে। আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৩২ রান।

তবে এর আগেই ফিরে যেতে পারতেন কারুনারাত্নে। দিনের ষষ্ঠ ওভারে তার ক্যাচ ফেলে দেন সাকিব। অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের বল বেরিয়ে এসে তুলে মেরেছিলেন করুনারত্নে। শর্ট কাভারে সাকিব বলে হাত ছুঁইয়েও বল তালুবন্দি করতে পারেননি।

করুনারত্নের বিদায়ের পর দলের আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান মেন্ডিসকে সঙ্গে নিয়ে দলের হাল ধরেন থারাঙ্গা। দুইজনে মিলে করেন ৬৫ রানের জুটি। এ জুটি ভাঙেন সাকিব। তার বলে তাসকিনকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান মেন্ডিস (১৯)।

এরপর চান্দিমালকে নিয়ে দলের হাল ধরেন থারাঙ্গা। দারুণ ব্যাটিং করে তুলে নেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি। তবে মেহেদী হাসান মিরাজের বল ক্রস ব্যাটে খেলতে বোল্ড হয়ে যান তিনি। তবে আউট হয়ে যাওয়ার আগে ১৭১ বলে ১১৫ রান করেন থারাঙ্গা।

এর আগে বৃষ্টির কারণে ম্যাচের তৃতীয় দিনের শেষ সেশনের খেলা বাতিল করেছিলেন ম্যাচ রেফারি। এরপর আর তেমন বৃষ্টি না হওয়ায় আগের দিনের ঘাটতি পুষিয়ে নিতে নির্ধারিত সময়ের ১৫ মিনিট আগে খেলা শুরু হয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ১২৯.১ ওভারে ৪৯৪ (করুনারত্নে ৩০, থারাঙ্গা ৪, মেন্ডিস ১৯৪, চান্দিমাল ৫, গুনারত্নে ৮৫, ডিকভেলা ৭৫, পেরেরা ৫১, হেরাথ ১৪, লাকমল ৮, সান্দাকান ৫, কুামারা ০; মোস্তাফিজ ২/৬৮, তাসকিন ১/৭৭, শুভাশীষ ১/১০৩, সাকিব ১/১০০, সৌম্য ০/৯, মাহমুদউল্লাহ ০/১০)

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৯৭.২ ওভারে ৩১২ (তামিম ৫৭, সৌম্য ৭১, মুমিনুল ৭, মুশফিক ৮৫, সাকিব ২৩, মাহমুদউল্লাহ ৮, লিটন ৫, মিরাজ ৪১, তাসকিন ০, শুভাশীষ ০*, মোস্তাফিজ ৪; লাকমল ১/৪২, কুমারা ১/৭০, পেরেরা ৩/৫৩, হেরাথ ৩/৭২, সান্দাকান ১/৬৯)

শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংস: ২৭৪/৬ ডি. (করুনারত্নে ৩২, থারাঙ্গা ১১৫, মেন্ডিস ১৯, চান্দিমাল ৫০, গুনারত্নে ০, ডিকভেলা ১৫, পেরেরা ৩৩; মোস্তাফিজ ১/২৪, তাসকিন ১/৩২, শুভাশীষ ০/৩৪, সাকিব ২/১০৪)।