সৌদি বাদশাহ সালমানকে হত্যার ষড়যন্ত্র!

Print Friendly

সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজকে হত্যার একটি ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করার দাবি করেছে মালয়েশিয়ার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। প্রায় এক মাসের বিদেশ সফরের অংশ হিসেবে সৌদি বাদশাহ সালমান মালয়েশিয়ায় যান ২৬ ফেব্রুয়ারি।

চার দিনের সফর শেষে তিনি চলে যান পাশের দেশ ইন্দোনেশিয়ায়। মালয়েশিয়া ছেড়ে যাওয়ার পর দেশটির পুলিশ দাবি করেছে যে, সৌদি বাদশাহকে হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিলো। কিন্তু আগেভাগেই তারা সেই যড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়েছে। খবর:রয়টার্স।

পুলিশের দাবি অনুযায়ী, এই ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত সন্দেহে ছয় জন বিদেশি নাগরিকসহ সাতজনকে আটক করা হয়েছে। ২১ থেকে ২৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে চার জন ইয়েমেনের নাগরিক। মালয়েশিয়ার পুলিশ প্রধান খালিদ আবু বকর বলেন, এই চার ইয়েমেনি কুয়ালালামপুরে সৌদি রাজপরিবারের ওপর হামলার পরিকল্পনা করেছিলো।

গাড়ি বোমা হামলা চালানোর মাধ্যমে ব্যাপক নাশকতার পরিকল্পনা করেছিলো তাদের। ওই চার জন ইয়েমেনের শিয়া বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুতির সাথে জড়িত। তাদেরকে রাজধানী কুয়ালালামপুরের কাছেই দুটো এলাকা থেকে আটক করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে, তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন দেশের পাসপোর্ট এবং ৬০ হাজার ডলার মূল্যমানের বিভিন্ন দেশের মুদ্রা পাওয়া গেছে। আটক বাকি তিন জন মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও পূর্ব এশিয়ার একটি দেশের নাগরিক।

এদের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের সম্পৃক্ততা আছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। বাদশাহ সালমানকে হত্যার কথিত এই ষড়যন্ত্র সম্পর্কে সৌদি আরবের কাছ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া আসেনি। এশিয়ার বিভিন্ন দেশের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদারের অংশ হিসেবে মালয়েশিয়া সফর করেন বাদশাহ সালমান।