৫ দিনে যা কমলো একদিনেই তার অর্ধেক বাড়ল

Print Friendly

পুঁজিবাজারে গত সাত কার্যদিবসে সূচক কমেছে ৬২ পয়েন্ট। কিন্তু আজ সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসেই ৩৩ পয়েন্ট সূচকের উত্থান হয়েছে। সাত কার্যদিবসে যে পরিমাণ সূচক কমেছে একদিনেই তার অর্ধেকের বেশি বেড়েছে। আর এই সূচক এতো বৃদ্ধির পেছনে ব্যাংক ও নন-ব্যাংকিং আর্থিক, বীমা এবং প্রকৌশল খাতের কোম্পানি পক্ষ থেকে অতিরিক্ত ক্রয় প্রেসার এসেছে বলে জানা গেছে।

সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) শুরু থেকে ক্রয় প্রেসারে বাড়তে থাকে সূচক। এরই ধারাবাহিকতায় টানা দুই কার্যদিবস ঘুড়ে দাঁড়িয়েছে বাজার। মঙ্গলবার সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশির ভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। আর টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা বেড়েছে। আজ দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১২৭ কোটি টাকা।

এ প্রসঙ্গে একাধিক মার্চেন্ট ব্যাংক ও ব্রোকারেজ হাউজের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, আজ লেনদেনের শুরু থেকেই ক্রয় প্রেসার লক্ষ করা যায়। অন্যান্য খাত গুলোতে বিক্রয় চাপ থাকলেও ব্যাংক, আর্থিক প্রকৌশল, এবং বীমা খাতের ব্যপক আগ্রহ দেখা যায়। মাঝখানে মুনাফাভোগী বিনিয়োগকারীদের চাপ থাকলে বিনিয়োগকারীদের সম্মিলিতভাবে শেয়ার ক্রয়ের ঝোক দেখা যায়। তাই বাজারে ক্রয় চাপ অব্যাহত থাকে। পরিণতিতে সূচকে উত্থান ঘটেছে।

মঙ্গলবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৩৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৬২২ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩০৭ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২০৩১ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৩০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬২টির, কমেছে ১১৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৯টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১২৭ কোটি ৫৬ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস অর্থাৎ সোমবার ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ১৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৫৫৮৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩০২ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২০১৭ পয়েন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ৯৬১ কোটি ৮ লাখ ২৮ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ১৬৬ কোটি ৪৮ লাখ ১২ হাজার টাকা।

এদিকে, দিনশেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক ৬২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১০ হাজার ৫৫৭ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৫১টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২৬টির, কমেছে ৯৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২টির। আর দিনশেষে লেনদেন হয়েছে ৬২ কোটি ৮২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা।