উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করল মালয়েশিয়া

Print Friendly

কুয়ালালামপুরে নিযুক্ত উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করেছে মালয়েশিয়ার সরকার। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তাকে অবশ্যই মালয়েশিয়া ছেড়ে চলে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের নির্বাসিত সৎভাইয়ের হত্যার ঘটনায় মালয়েশিয়ার পক্ষ থেকে তদন্তের উদ্যোগ নেয়ার সমালোচনা করেছিলেন রাষ্ট্রদূত ক্যাং চোল। এরপরই তাকে মালেশিয়া ছাড়তে বলে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনিফা আমান গতকাল শনিবার এক বিবৃতিতে বলেন, উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত ক্যাং চোলকে ‘অবাঞ্চিত ব্যক্তি’ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। আমান জানান, উত্তর কোরিয়ার নেতার ভাইয়ের হত্যার ঘটনায় যে সমালোচনা করেছেন দেশটির রাষ্ট্রদূত সে বিষয়ে এক সপ্তাহ আগে বলা হলেও তিনি এখনো ক্ষমা চান নি।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সৎভাই কিম জং ন্যাম গত ১৩ ফেব্রুয়ারি কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরের বহির্গমন হলে দুই নারী হামলাকারীর আক্রমণে মারা যান। অবশ্য, পরে দুই নারীকেই আটক করা হয়েছে। নিহত ন্যামের লাশের ময়না তদন্তের উদ্যোগ নেয়ায় উত্তর কোরিয়া তার সমালোচনা করে আসছে। দেশটি বলছে, ন্যাম কূটনৈতিক পাসপোর্ট নিয়ে ভ্রমণ করছিলেন এবং তার লাশের ময়নাতদন্ত করা “অনৈতিক ও বেআইনি।” উত্তর কোরিয়া বলছে, এসব তদন্তের নামে মালয়েশিয়া পিয়ংইয়ংয়ের শত্রুদেরকে সহায়তা করছে।

উত্তর কোরিয়ার এসব বক্তব্যের জবাবে গত বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়ার নাগরিকদের জন্য ভিসামুক্ত ভ্রমণের সুবিধা বাতিল করেছে মালয়েশিয়া। দেশটির উপ প্রধানমন্ত্রী আহমাদ জাহিদ হামিদি জানিয়েছেন, “জাতীয় নিরাপত্তার কথা বিবেচনা” করে ভিসামুক্ত ভ্রমণের সুবিধা বাতিল করা হয়েছে। তিনি তখন বলেছিলেন, মালয়েশিয়ার সুনাম ক্ষুণ্ন করার ক্ষেত্রে যেকোনো অপমানজনক বক্তব্যের বিরুদ্ধে তার সরকার কঠোর প্রতিক্রিয়া দেখাবে।

দক্ষিণ কোরিয়ার পুলিশ বলেছে, কিম জং ন্যাম মারা গেছে উত্তর কোরিয়ার পাঠানো গোয়েন্দাদের হাতে। অবশ্য, মালয়েশিয়া এ বক্তব্য এখনো নিশ্চিত করে নি কিংবা নাকচও করে নি।