এয়ারটেলের কাছে বিক্রি হচ্ছে ভারতের টেলিনর

Print Friendly

নরওয়ের টেলিনর গ্রুপ ভারতের প্রযুক্তি বাজার থেকে ব্যবসা গুটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানটি তাদের ভারতের ব্যবসা ভারতী এয়ারটেলের কাছে বিক্রি করছে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক খবরে এই তথ্য জানানো হয়। ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও বাজারে আসার পর প্রতিযোগিতামূলক বাজারে না টিকতে পেরে টেলিনর এ ধরনের বার্তা দিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার ওই খবরে বলা হচ্ছে, ভারতের সবচেয়ে বৃহৎ মোবাইল ফোন অপারেটর হতে যখন ভোডাফোন ও আইডিয়া সেলুলার এক হওয়ার পথে, ঠিক তখনই টেলিনর ও এয়ারটেলের মধ্যে এ ধরনের চুক্তি হচ্ছে।

টেলিনরের একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এই চুক্তির আওতায় ভারতী এয়ারটেল নগদ কোনো অর্থ দেবে না। লাইসেন্স ফি ও টাওয়ার নেটওয়ার্কের জন‌্য টেলিনরের যে দায়, তার দায়িত্ব তারা নেবে। পাশাপাশি টেলিনর ইন্ডিয়ার কর্মীদেরও আত্মীকরণ করা হবে।

ভারতের ইকোনমিক টাইমস জানিয়েছে, তরঙ্গ বাবদেই টেলিনরের দায়ের পরিমাণ এক হাজার ৬৫০ কোটি রুপির মত। এছাড়া রয়েছে টাওয়ার ইজারাসহ বিভিন্ন চুক্তিও রয়েছে। আসাম, উত্তর প্রদেশ, গুজরাট, মহারাষ্ট্র, বিহার ও অন্ধ্রপ্রদেশে প্রতিষ্ঠানটির ৪ কোটি ৪০ লাখ গ্রাহক রয়েছে। টেলিনরের ৪ কোটি ৪০ লাখ গ্রাহক মিলিয়ে ভারতীয় এয়ারটেলের গ্রাহক সংখ‌্যা দাঁড়াবে ৩০ কোটি। পাশাপাশি এই চুক্তির ফলে ভারতীর ফোর জি নেটওয়ার্ক ও বাজারের আওতা বাড়বে, যা ভারতের টেলিকম খাতের আরেক বড় অপারেটর রিলায়েন্স জিও ইনফোকমের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আরও শক্ত ভিত্তি যোগাবে।

এয়ারটেল জানিয়েছে, তারা টেলিনরকে অধিগ্রহণের চুক্তিতে প্রবেশ করেছে। এখন তারা ভারতের নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদনের দিকে এগুচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে ভারতের বাজারে প্রবেশ করে টেলিনর। আগামী ১২ মাসের মধ্যে দুই কোম্পানির মধ্যে এই অধিগ্রহণ চুক্তি সম্পন্ন হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। বাংলাদেশের বাজারে টেলিনর গ্রামীণফোন নামে ব্যবসা করে। কোম্পানিটি দেশের পুঁজিবাজারেও তালিকাভুক্ত রয়েছে।