আরেক দফা বাড়লো তেলের দাম

Print Friendly

যুক্তরাষ্ট্রে গ্যাসোলিনের মজুদ অপ্রত্যাশিতভাবে কমে যাওয়ায় তার প্রভাব পড়েছে তেলের বাজারে। আজ বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দর আরেক দফা বেড়েছে। তবে সরবরাহ বাড়তি থাকায় এ বাজার এখনও চাপে রয়েছে।

রয়র্টাসের এক খবরে বলা হয়, এদিন অপেক্ষাকৃত উন্নত মানের ব্রেন্ট ক্রুড শ্রেণির তেল ব্যারেলপ্রতি বিক্রি হয় ৫৫.৪১ মার্কিন ডলার। যা গত কার্যদিবস থেকে দশমিক ৫ শতাংশ বেশি। এছাড়া ইউএস ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট শ্রেণির তেল বিক্রি হয় ব্যারেলে দশমিক ৫ শতাংশ বেড়ে ৫২.৬০ ডলার।

গতকাল বুধবার মার্কিন জ্বালানি প্রশাসন (ইআইএ) জানায়, গত সপ্তাহে তাদের গ্যাসোলিনের মজুদ ৮ লাখ ৬৯ হাজার ব্যারেল কমেছে। বর্তমানে মজুদ আছে ২৫৬.২ মিলিয়ন ব্যারেল। অথচ বিশেষজ্ঞদের প্রত্যাশা ছিল গ্যাসোলিনের মজুদ ১.১ মিলিয়ন ব্যারেল বাড়বে। মার্কিন বিনিয়োগ ব্যাংক গোল্ডম্যান স্যাকস জানিয়েছে, জ্বালানি মজুদ বৃদ্ধি এবং ইউএস ক্রুডের উৎপাদন বৃদ্ধির অর্থ হচ্ছে তেলের বাজারে কিছু সময়ের জন্য সরবরাহ বেড়ে যাওয়া।

সরবরাহ বাড়লে তেলের দাম কমবে। আর তেল রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংগঠন ওপেকভুক্ত দেশগুলোর পূর্বঘোষিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যদি উৎপাদন সীমিত রাখা যায় তবে, দাম বাড়বে।
বিএমআই নামের এক গবেষণা প্রতিষ্ঠান বলছে, এ বছর আন্তর্জাতিক বাজারে ওয়েস্ট টেক্সাস শ্রেণির তেলের গড় দাম ৫৭ ডলারে থাকতে পারে।