‘ফেসবুক স্টোরিজ’ নামে নতুন ফিচার আসছে ফেসবুকে

Print Friendly

আরো একবার স্ন্যাপচ্যাটকে ‘নকল’ করল ফেসবুক। সেইসঙ্গে এ দুই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের মাঝে মনকষাকষি সম্ভবত আরো বেশি পাকা হলো। গত বুধবার ফেসবুক ঘোষণা করে, ‘ফেসবুক স্টোরিজ’ নামে একটি ফিচার পরীক্ষামূলক পর্যায়ে চালু করেছে জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। স্ন্যাপচ্যাট স্টোরিজকে ‘নকল’ করেই তাদের এই নতুন ফিচার সাজানো, এ প্রসঙ্গে এমনটাই মন্তব্য করেছে ম্যাশেবল জানাচ্ছে এই খবর।

তবে ফেসবুকের এহেন অনুকরণ এবারই প্রথম নয়। গত বছরের আগস্টে ফেসবুকের মালিকানাধীন ইনস্টাগ্রাম চালু করে স্ন্যাপচ্যাট স্টোরিজ-এর ইনস্টাগ্রাম সংস্করণ ‘ইনস্টাগ্রাম স্টোরিজ’। ইনস্টাগ্রামের এই ফিচার অবশ্য বেশ জনপ্রিয় হয়েছে উন্মুক্ত হওয়ার পর থেকেই। ইনস্টাগ্রাম জানিয়েছে, দৈনিক ১৫ কোটির বেশি নিয়মিত ব্যবহারকারী ব্যবহার করছে ছবি কিংবা ভিডিও শেয়ারিংয়ের ফিচারটি।

এ মুহূর্তে ফেসবুক শুধু আয়ারল্যান্ডে পরীক্ষামূলক পর্যায়ে চালু করেছে ফেসবুক স্টোরিজ। এক মিনিটের এক প্রমোশনাল ভিডিওর মাধ্যমে নতুন ফিচারটির বিভিন্ন দিক তুলে ধরেছে। ঠিক ইনস্টাগ্রামের লে-আউটটি ব্যবহার করা হয়েছে এখানে। হোমপেজের ঠিক ওপরে বৃত্তাকার ট্যাবে বিভিন্ন ব্যবহারকারীকে দেখা যাবে, যেখানে ক্লিক করলে তাদের আপলোড করা বিভিন্ন ছবি এবং ভিডিও দেখা যাবে।

অন্যদিকে ‘ইয়োর স্টোরি’ ট্যাবে ক্লিক করে ব্যবহারকারী নিজের ছবি কিংবা ভিডিও আপলোড করতে পারবেন। একইসঙ্গে ব্যবহার করা যাবে বিভিন্ন ফিল্টার। স্ন্যাপচ্যাট যাকে ‘ফিল্টার’-নামে ডাকছে, ফেসবুক তার নামকরণ করেছে ‘ফ্রেম’ নামে। স্ন্যাপচ্যাটে ‘লেন্স’ অপশনের অনুকরণে ফেসবুক তৈরি করেছে ‘মাস্ক’!

স্টোরিজের সঙ্গে ডিএম বা ডিরেক্ট মেসেজ সুবিধাও যুক্ত করেছে ফেসবুক, যা ফেসবুক মেসেঞ্জার থেকে ভিন্ন। অন্যদিকে ঠিক ২৪ ঘণ্টা পরেই স্টোরিজে শেয়ার করা ভিডিও এবং ছবি স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে যাবে, ঠিক স্ন্যাপচ্যাটের মতোই। অবশ্য যদি ব্যবহারকারী সেসব ছবি কিংবা ভিডিও তার নিজস্ব টাইমলাইনে প্রকাশ করে, তবে সেগুলো টাইমলাইন থেকে মুছে যাবে না।

ফেসবুক জানিয়েছে, আগামীতে ফেসবুক স্টোরিজ এবং আরো নিত্যনতুন ফিচার বিভিন্ন দেশের জন্য উন্মুক্ত করা হবে।